২০১৭ সালে মোবাইল অ্যাপ পরিষেবায় নতুন কী আসতে চলেছে....

আমাদের দৈনন্দিন জীবন এখন ডিজিটাল। আমাদের রোজকার জীবনের বিভিন্ন কাজের সঙ্গে নানাভাবে জড়িয়ে গেছে মোবাইলের বিভিন্ন অ্যাপ। সময় যত এগোচ্ছে, যত আমরা মোবাইলের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ছি, ততই আমাদের রোজনামচাকে আরও সহজ করে তোলার জন্য আমরা অ্যাপ নির্ভর হয়ে পড়ছি। সত্যি বলতে কী, গোটা পৃথিবীর মানুষ এখন মোবাইল অ্যাপে মজেছে।

২০১৭ সালে মোবাইল অ্যাপ পরিষেবায় নতুন কী আসতে চলেছে....

আর যত মানুষ এভাবে অ্যাপ নির্ভর হয়ে পড়ছে, ততই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মোবাইল অ্যাপের সংখ্যা। সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, গত কয়েকবছরে মোবাইল অ্যাপের সংখ্যা মারাত্মকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। গুগল প্লে স্টোর এবং অ্যাপল অ্যাপ স্টোর হাউসে প্রত্যেক বছর নতুন নতুন হাজার হাজার অ্যাপ আসছে। আর হিসেব বলছে, এই অ্যাপের সংখ্যা বৃদ্ধি কোনওভাবেই কমবে না, বরং তা দিন দিন বেড়েই চলবে।

2016-র সেরা ক্যামেরা ফোনের তালিকা, রেজ্যুলিউশন 20 মেগাপিক্সেলের বেশি

২০১৬ সালে বাজারে বেশকিছু নতুন মোবাইল অ্যাপ এসেছে, মূলত গ্রসারি অ্যাপ, রাইড-শেয়ারিং অ্যাপ, ক্লাউড বেসড অ্যাপ বা অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় অ্যাপ। এবছরেও বেশকিছু নতুন নতুন অ্যাপ আসতে চলেছে বাজারে। তাদের মধ্যে কানেক্টেড হোমস, স্মার্ট কারস-এর অ্যাপ যেমন রয়েছে, তেমনই রয়েছে
ওয়্যারেবেলস বা loT-এনাবেলড ডিভাইসেসের মতো অ্যাপও।

স্মার্ট ফোনের এক্সচেঞ্জ অফারে হয়ে উঠুন আরও স্মার্ট....

গত বছর অর্থাত ২০১৬ সালে বিভিন্ন ধরণের মোবাইল অ্যাপ বাজারে চলে আসার পর এবার ২০১৭-র পালা। এ বছর নতুন নতুন মোবাইল অ্যাপগুলি কি কি সারপ্রাইজ নিয়ে আসে, সেদিকে অবশ্যই সকলের নজর থাকবে। এবার এক নজরে দেখে নেওয়া যাক, এবছর অর্থাত ২০১৭ সালে মোবাইল অ্যাপে কি কি নতুন জিনিস থাকতে চলেছে।

অ্যাপ ডেভেলপারদের জন্য আসতে চলেছে Swift 2
   

অ্যাপ ডেভেলপারদের জন্য আসতে চলেছে Swift 2

iOS অ্যাপ ডেভেলপারদের কাছে Swift নেক্সট জেন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ হিসেবে পরিচিত, অবজেকটিভ-c এর থেকেও যা বেশি সহজ বলে মনে করা হয়। এ বছর অর্থাত ২০১৭ সালে অ্যাপ ডেভেলপারদের কাছে এই Swift-র প্রয়োজনীয়তা আরও বাড়তে চলেছে। সমীক্ষা অনুযায়ী, মোবাইল অ্যাপ ডেভেলপমেন্টের ভবিষ্যতের জন্য আসতে চলেছে Swift 2।

বীকনস এবং লোকেশন নির্ভর পরিষেবা বৃদ্ধি
   

বীকনস এবং লোকেশন নির্ভর পরিষেবা বৃদ্ধি

লোকেশন নির্ভর পরিষেবা এবছরের অন্যতম প্রধান হাতিয়ার এবং এর ওপর তৈরি করা অ্যাপ এবছর জনপ্রিয় হতে চলেছে। গত বছরও লোকেশন নির্ভর অ্যাপ যেমন, অ্যাপলের আইবীকনস এবং গুগল বীকনসের প্রয়োজনীয়তা যথেষ্ট চোখে পড়েছিল। এবছর এই অ্যাপের পরিষেবা আরও উন্নত করা হবে। ওয়াইফাই পরিষেবাকেও নির্দিষ্ট জায়গার মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে আরও ছড়িয়ে দেওয়া হবে, যাতে এই অ্যাপের মাধ্যমে লোকেশন নির্ভর তথ্য পেতে মানুষের কোনও অসুবিধা না হয়।

IOT হতে চলেছে পরবর্তী যুগান্তকারী
   

IOT হতে চলেছে পরবর্তী যুগান্তকারী

ক্লাউড বেসড অ্যাপের চাহিদা বৃদ্ধির জন্য 'ইন্টারনেট অব থিঙ্গস' বা IOT-র পথ তৈরি হয়েছে, যা টেকনোলজি জগতের কাছে পরবর্তী যুগান্তকারী বলে মনে করা হচ্ছে। সমীক্ষা অনুযায়ী, IOT হল একটি অন্যতম কি প্লেয়ার এবং একটি মেজর ট্রেন্ড, যা অ্যাপ নির্ভর পৃথিবীতে টিকে থাকবে।

 

এম-কমার্স অ্যাপের উন্নতি
   

এম-কমার্স অ্যাপের উন্নতি

২০১৬ সালে এম-কমার্স সেক্টরে বেশ ভালো বৃদ্ধি হয়েছিল। মানুষ এখন শপিং বা অন্যান্য লেনদেনের জন্য ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ড কম ব্যবহার করে ওয়ালেট বা পেমেন্ট অ্যাপের ব্যবহার বেশি করছেন। এই এম-কমার্স অ্যাপগুলি এবার তাদের পরিষেবা বৃদ্ধির দিকে নজর দিচ্ছে এবং ২০১৭ সালে সম্পূর্ণ নতুনরূপে তাদের অ্যাপ নিয়ে আসছে। এবছর অ্যাপ ডেভেলপমেন্টের ক্ষেত্রে বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে এই এম-কমার্স অ্যাপ।

নিরাপত্তা বাড়বে অ্যাপগুলির
   

নিরাপত্তা বাড়বে অ্যাপগুলির

বেশিরভাগ অ্যাপেই যথেষ্ট নিরাপত্তা থাকেনা। ফলে খুব সহজেই হ্যাকাররা ওই অ্যাপে ঢুকে সাধারণ মানুষের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সংগ্রহ করে তার ফায়দা তুলতে পারে। ২০১৬ সালে এরকম বেশকিছু ঘটনা ঘটেছে। তাই ২০১৭ সালে অ্যাপ ডেভেলপাররা এই বিষয়টি নজরে রাখবেন এবং অ্যাপগুলির নিরাপত্তা বাড়ানোর জন্য আরও যত্নবান হবেন বলেই মনে করা হচ্ছে।

অগমেন্টেড রিয়েলিটি এবং ভার্টুয়াল রিয়েলিটি
   

অগমেন্টেড রিয়েলিটি এবং ভার্টুয়াল রিয়েলিটি

অগমেন্টেড রিয়েলিটি এবং ভার্টুয়াল রিয়েলিটি এই দুই-ই হল টেকনোলজি জগতের ভবিষ্যত। ২০১৬ সালেই তার বেশকিছু ঝলক পাওয়া গেছে, যা ২০১৭ সালে আরও বৃদ্ধি পাবে বলেই মনে করা হচ্ছে। গেমিং এবং এন্টারটেইনমেন্ট সেক্টরে প্রবলভাবে প্রযুক্তিগত উন্নতি হয়েছে, যারফলে পোকেমন গো-এর মতো গেমগুলো জনপ্রিয় হয়েছে। সমীক্ষা বলছে, ভার্চুয়াল রিয়েলিটির জনপ্রিয়তা তুলনামূলকভাবে কম হলেও, ২০১৭ শেষ হওয়ার আগেই অগমেন্টেড রিয়েলিটির জনপ্রিয়তা আরও বৃদ্ধি পাবে।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স
   

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স

টেকনোলজি দুনিয়ায় গুরুত্ব পেতে চলেছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স। সমীক্ষা অনুযায়ী, গত বছরের তুলনায় এবছর আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্সে অনেক বেশি বিনিয়োগ হতে চলেছে। গত বছর প্রিসমা, গুগল নাউ-এর মতো আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স অ্যাপগুলি প্রবল জনপ্রিয় হয়েছিল। এবছরও আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স অ্যাপগুলো আরও জনপ্রিয় হবে এবং নতুন নতুন ডিজাইনের আরও অ্যাপ বাজারে আসবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

 

ক্লাউড-ড্রাইভেন মোবাইল অ্যাপস
   

ক্লাউড-ড্রাইভেন মোবাইল অ্যাপস

ক্লাউড বেসড অ্যাপগুলো অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং ইউজার্স খুব সহজেই এই অ্যাপের মধ্যে তাঁর সমস্ত তথ্য স্টোর করে রাখতে পারেন। এই অ্যাপগুলিকে ইউজার্স তাঁদের পছন্দমতো ব্যবহার করতে পারেন। ড্রপবক্স গুগল ড্রাইভ, ওয়ান ড্রাইভের মতো ক্লাউড বেসড অ্যাপ তো অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়েছে। এবছরও এই ধরণের অ্যাপের সংখ্যা আরও বাড়বে বলেই মনে করা হচ্ছে।

এন্টারপ্রাইজ অ্যাপস এবং মাইক্রো অ্যাপস
   

এন্টারপ্রাইজ অ্যাপস এবং মাইক্রো অ্যাপস

অ্যাপের জগতে এন্টারপ্রাইজ অ্যাপ ক্যাটেগরিতে অভূতপূর্ব উন্নতি হয়েছে। তবে শুধু এন্টারপ্রাইজ অ্যাপই নয়, মাইক্রো অ্যাপও সমানভাবে জনপ্রিয়। এই দুই ধরণের অ্যাপ জীবনকে অনেক সহজ করে তুলেছে এবং ২০১৭ সালে এই অ্যাপের অত্যন্ত উন্নতি হবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

 



Read more about:
English summary
App trends to hit the market in 2017.
Please Wait while comments are loading...

Social Counting