ফেসবুকে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য সত্যিই গোপন থাকছে তো?

By: Madhuraka Dasgupta

আপনি কী ফেসবুকে আপনার পার্সোনাল ডিটেইলস শেয়ার করেন? আর তারপর নিশ্চিন্ত হয়ে ভাবেন যে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য গোপন রয়েছে! না, এতটাও নিশ্চিন্ত হয়ে বসে থাকবেন না। কারণ এখন আপনাদের ফেসবুক সম্পর্কে এমন পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেব, যারপর আপনি আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি ডিলিট করে দেওয়ার কথাও ভাবতে পারেন।

ফেসবুকে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য সত্যিই গোপন থাকছে তো?

আজকালকার দিন ফেসবুক ছাড়া আমাদের জীবন কল্পনাই করা যায়না। কোনও ছবি পোস্ট হোক বা স্ট্যাটাস আপডেট অথবা কোথাও চেক-ইন করা, আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটা গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হয়ে উঠেছে ফেসবুক। আমরা কেউই সেটা অস্বীকার করতে পারিনা।

ফেসবুক লাইভ ভিডিও এখন থেকে আরো মজার-জেনে নিন কিভাবে?

তবে যতই আমরা ফেসবুকে সময় কাটাই না কেন, ফেসবুকে বেশকিছু নিয়মকানুন রয়েছে যেগুলো সম্পর্কে আমরা সচেতন নই। কিছুদিন ধরে ফেসবুকে যে বিভিন্ন হেডলাইন দেখা যাচ্ছে, তার কারণ আর কিছুই নয়, তার কারণ হল সাধারণ মানুষ ফেসবুকের প্রাইভেসি পলিসি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।

কিভাবে এক্ষুনি আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনে হোয়াট্‌স-অ্যাপের নতুন স্ট্যাটাস ফিচারকে সক্রিয় করবেন [১০০% কার্যরত]

ফেসবুক যতই আমাদের পুরনো হারিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে পুনর্মিলন ঘটিয়ে দিক না কেন, এর বেশকিছু খামতিও রয়েছে। ফেসবুকের এরকমই পাঁচটি নিয়ম এখন আপনাদের সামনে তুলে ধরব, যেগুলো সম্পর্কে সাধারণ মানুষ সচেতন থাকেন না।

সন্দেহজনক প্রাইভেসি পলিসি
   

সন্দেহজনক প্রাইভেসি পলিসি

ফেসবুক ইউজার্সদের প্রাইভেসি নিয়ে প্রতারণা করছে এই সোশ্যাল মিডিয়া। সম্প্রতি এধরণেরই একটি মেসেজ আপডেট করে ফেসবুকেই সতর্ক করা হয়েছে সাধারণ মানুষকে। যদি আপনি ভেবে থাকেন যে, ফেসবুকে আপনি আপনার ব্যক্তিগত তথ্য দিচ্ছেন এবং ফেসবুক সেই তথ্য গোপন করে রাখবে তাহলে আপনাকে জানিয়ে রাখা ভালো যে, আপনি একেবারেই ভুল ভাবছেন! যদি আপনি মনে করে থাকেন যে আপনি আপনার পোস্টটি পাবলিক না করে আপনার বন্ধুদের মধ্যে রেসট্রিকটেড করে পোস্ট করবেন, তাহলেও কিন্তু নিশ্চিন্ত হওয়ার কারণ নেই। সেক্ষেত্রেও আপনার প্রাইভেসি নষ্ট হতে পারে।

নতুন স্মার্টফোন শ্রেষ্ঠ অনলাইন হত্যা জন্য এখানে ক্লিক করুন

আপনার তথ্যের ওপর নজর রাখছে বিভিন্ন কোম্পানি
   

আপনার তথ্যের ওপর নজর রাখছে বিভিন্ন কোম্পানি

ফেসবুকের মাধ্যমে আপনার অনলাইন মুভেমেন্টের ওপর নজর রাখে বিভিন্ন কোম্পানি। এই সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনার ওয়েব হিস্ট্রি হোক বা ব্যবহৃত অ্যাপ, সমস্ত তথ্যই এই কোম্পানিগুলোর কাছে তুলে ধরে ফেসবুক, যাতে সেই সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন আপনি পেতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনার প্রাইভেসি মোটেও দেখা হয়না, টাকাটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে।

 আপনার ব্যক্তিগত সম্পর্কগুলোকে নষ্ট করে দিতে পারে ফেসবুক
   

আপনার ব্যক্তিগত সম্পর্কগুলোকে নষ্ট করে দিতে পারে ফেসবুক

শুধুমাত্র নতুন বন্ধু তৈরিই নয়, পুরনো বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়স্বজন এবং ভালোবাসার মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক আরও মজবুত করতেও সমান জনপ্রিয় ফেসবুক। তবে মাত্রাতিরিক্ত ফেসবুক করলে ব্যক্তিগত জীবনে সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। সমস্ত কিছু সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা, দেশ সংক্রান্ত বিষয়ে যে কোনও ধরণের মন্তব্য, অবাস্তব চাহিদা একদিকে যেমন জীবনে সমস্যা ডেকে আনে, ঠিক তেমনই ব্যক্তিগত সম্পর্কগুলোকে নষ্ট করে দিতে পারে।

অতিরিক্ত ফেসবুক আসক্তি
   

অতিরিক্ত ফেসবুক আসক্তি

ফেসবুকের নেশা মারাত্মক নেশা। কাজের ফাঁকে, ঘুরতে বেরিয়ে বা অন্য কোথাও গিয়ে আপনি যদি সারাদিন ধরে ফেসবুক করেন, তাহলে আপনার কাজের যথেষ্ট ক্ষতি হবে। কিন্তু যদি আপনার ফেসবুকের নেশা না থাকে, তাহলে সেই কাজটাই আপনি আরও ভালো করে করতে পারবেন। আপনার স্মার্টফোনের টুং-টাং, ইমেলের ইনবক্সে নজরদারি কিংবা ফেসবুকের নিউজফিড আপনার মনোসংযোগ বারবার নষ্ট করে, যারফলে কাজের জায়গাতেও আপনার পারফরমেন্স তুলনামূলকভাবে খারাপ হয়।

ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করার প্ররোচনা দেয় ফেসবুক
   

ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করার প্ররোচনা দেয় ফেসবুক

আমি-আপনি প্রায় সারাক্ষণই ফেসবুকে অনলাইন থাকি। সেক্ষেত্রে আপনি কোথায় যাচ্ছেন সেটা চেক-ইন করা বা ছবি পোস্ট করার মতো একাধিক অপশন থাকে। যার মাধ্যমে আপনার সমস্ত ব্যক্তিগত তথ্য পাবলিক হয়ে যায়। এভাবে অনেকেই আপনার ওপর নজরদারি করতে পারে।

নতুন স্মার্টফোন শ্রেষ্ঠ অনলাইন হত্যা জন্য এখানে ক্লিক করুন

Read more about:
English summary
You think you're safe on Facebook, while you share your personal details? Well, you're wrong! Check it out why?
Please Wait while comments are loading...

Social Counting

Bengali Gizbot আপনাকে নটিফিকেশন পাঠাতে চায়