২০ বছর পরে বন্ধ হয়ে গেল Yahoo Messenger

By GizBot Bureau

    সবকিছুর যেমন শুরু আছে, তেমনি কালের নিয়মেই শেষও হয় সবকিছুই। এই কথাই আবার প্রমান করল Yahoo Messenger। দীর্ঘ ২০ বছর পরে Yahoo Messenger বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল Yahoo। এই প্রজন্মের কলেজ জীবনের নস্টালজিয়া Yahoo Messenger কে বিদায় জানানোর সময় এসেছে।

    ২০ বছর পরে বন্ধ হয়ে গেল Yahoo Messenger

     

    ভারতে ইন্টারনেট যুগের শুরুতে এক চেটিয়া দাপট দেখিয়েছিল Yahoo Messenger। ৯০ এর দশকের শেষ থেকে পরের শতাব্দীর প্রথম দশকের শুরুর কয়েকটা বছর Yahoo Messenger এর দাপট ছিল বিশ্বব্যাপী। এরপরেই ধীরে ধীরে Orkut, Facebook, Skype, WhatsApp ইন্সট্যান্ট মেসেজিং এর বাজার দখল করতে শুরু করে। আর ক্রমশই অপ্রাসঙ্গিক হতে শুরু করে Yahoo Messenger। যাঁরা সেই নব্বই এর দশক্ল থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করেন Yahoo Messenger এর জন্য নিশ্চই তাঁদের হৃদয়ে বিশেষ জায়গা রয়েছে।

    Yahoo Messenger বন্ধের পরে Yahoo Messenger এর গ্রাহকদের নিজে থেকেই Yahoo-র নতুন মেসেজিং সার্ভিস Squirrel এ পাঠিয়ে দেওয়া হবে। কোম্পানির ওয়েবসাইট থেকে আগামী ছয় মাসের মধ্যে গ্রাহকরা Yahoo Messenger-এর চ্যাট হিস্ট্রি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

    ১৯৯৮ সালে প্রথম Yahoo Messenger এর সার্ভিস শুরু হয়েছিল। লঞ্চের সাথেসাথেই বিশ্বের তামাম শিল্পপতি ও ব্যবসায়ীরা এই সার্ভিস ব্যবহার শুরু করেছিলেন। প্রথমে বিশ্বব্যাপী তেলের ব্যবসায় Yahoo Messenger দারুন জনপ্রিয় হয়েছিল। বিনামূল্যে এই সার্ভিস ব্যবহারের জন্যই Yahoo Messenger শুরুতে জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল। ২০০৯ সালে Yahoo Messenger এর গ্রাহক সংখ্যা ছিল ১২.২ কোটি।

    শুরুর দিকে Yahoo Messenger এর চ্যাটরুম সার্ভিস দারুন জনপ্রিয়তা লাভ করে। যদিও ২০১২ সালে এই সার্ভিস বন্ধ করে দেয় Yahoo Messenger। Googleb এর সাথে প্রতিযোগিতায় Yahoo Messenger কোম্পানিকে বরাবর ভালো সুযোগ দিয়ে এসেছে।

    Read more about:
    English summary
    Yahoo Messenger shuts down leaving behind fond memories for those who used it extensively, right from the turn of the century. It's the end of an era.

    Bengali Gizbot আপনাকে নটিফিকেশন পাঠাতে চায়

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Gizbot sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Gizbot website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more