কোন মৃত্যুর পিছনেই সরাসরি দায়ী করা যাচ্ছে না ব্লু হোয়েল চ্যালেঞ্জকে

Posted By: Satyaki Bhattacharyya

ইতিমধ্যেই বিশ্বব্যাপী বহু শিশুর প্রাণ নিয়েছে মারন গেম ব্লু হোয়েল চ্যালেঞ্জ। যদিও সংখ্যাটি ঠিক কাত সেই ব্যাপারে সঠিক তথ্য পাওয়া সম্ভব নয়। এছাড়াও মৃত্যুর পর কোন প্রমান রাখছেনা এই মারন গেম।

কোন মৃত্যুর পিছনেই সরাসরি দায়ী করা যাচ্ছে না ব্লু হোয়েল চ্যালেঞ্জকে

এক CERT তদন্তে জানানো হয়েছে দেশব্যাপী কোন মৃত্যুর সাথেই ব্লু হয়েল গেমের কোন প্রত্যক্ষ প্রমান পাওয়া যায়নি।

লোকসভায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হংশরাজ গঙ্গারাম আহির জানিয়েছেন, দেশব্যাপী ব্লু হোয়েল চ্যালেঞ্জের বাড়াবাড়ির জন্য কেন্দ্রীয় সরকার এক তদন্ত কমিটি গঠন করে।

" সব রাজ্য ও কেন্দ্র শাষিত অঞ্চলে এই গেমের উপর কড়া নজর রাখতে বলা হয়েছিল। CERT প্রত্যেকটি ইন্টারনেট অ্যাকটিভিটি, ডিভাইস অ্যাকটিভিটি, কল রেকর্ড, সোসাল মিডিয়া অ্যাকটিভিটি ও বেঁচে যাওয়া তরুনদের সাথে কথা বলে তদন্তকারী টিম।"

"কোন ক্ষেত্রেই ব্লু হোয়েল গেমকে সসাসরি কাঠগোড়ায় তোলা সম্ভব হয়নি।" বলে জানিয়েছেন আহির। তিনি আরও বলেন ,"তদন্তকারী দল একটি ক্ষেত্রেও ঘটনার জন্য ব্লু হোয়েল গেমকে দোষী করার জন্য কোন প্রমান পায়নি।"

রোজকার যোগাযোগ বাড়াতে, সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট খুলছে পুলিশ স্টেশনগুলি

রাশিয়ায় এই খেলা তৈরী করেছে মানষিক ভাবে বিকৃত এক তরুন। ৫০ দিনের এই খেলায় ধীরে ধীরে সুস্থ তরুনরা মানষিক বিকারগ্রস্ত হয়ে পড়ে এবং অবশেষে অত্মহত্যা করে বসে তারা। গত অক্টোবরে সুপ্রিম কোর্টে ২৮ টি এমন কেস জমা পড়েছিল।

যদিও এই গেম যিনি তৈরী করেছিলেন তাঁকে গ্রাপ্তার করা হলেও বন্ধ হয়নি এই গেম। কিছুদিন আগেই হায়দ্রাবাদে এক ১৯ বছরের ছাত্রের মৃত্যর পিছনে দায়ী করা হয়েছে এই মারন গেমকে।

Read more about:
English summary
A CERT-In investigation has now stated that no connection has been established relating to incidents of children committing suicide after playing online "Blue Whale Challenge Game" in states and union territories.

Social Counting

Bengali Gizbot আপনাকে নটিফিকেশন পাঠাতে চায়