এইচ+, এলটিই, ৪জি এবং ৩জি-র পার্থক্য কী জেনে নিন

Posted By: Gizbot Bureau

    আরও দ্রুত, আপগ্রেডেড। চাহিদা বাড়ছে। তাই পাল্টাচ্ছে নেটওয়ার্কের রকমসকম। প্রত্যেক নেটওয়ার্কই স্বতন্ত্র। মোবাইল বারে নেটওয়ার্ক হিসেবে নানান চিহ্নে থাকে আলাদা আলাদা নেটওয়ার্ক।

    এইচ+, এলটিই, ৪জি এবং ৩জি-র পার্থক্য কী জেনে নিন

    কিন্তু সব নেটওয়ার্কের সবকিছু জানেন কী? না জেনে থাকলে জেনে নিন।

    2G

    ১৯৯১ সালে বাজারে আসে টুজি। ১জি-কে ছাপিয়ে বাজারে আসে এটি। এক্ষেত্রে ফোন কলগুলি ডিজিটালি এনক্রিপটেড। স্পেক্ট্রাম অনেক ক্ষমতাশালী। টুজিতেই প্রথম মোবাইলে ডেটা সার্ভিস আসে।

    2.5G

    এরপর হার্ডওয়্যার ডেভেলপ করেছে। পরিকাঠামো বদলেছে। ডেটা স্পিডও বেড়েছে। আড়াই জি অফিশিয়ালি কখনও ছিল না। কিন্তু ওই থ্রিজি-র আগের ধাপে এটি ছিল। এই ধরণের নেটওয়ার্কে কী কী ছিল দেখুন

    ক. GPRS: General Packet Radio Service (৩০-৪০ কেবিপিএস)

    ফোন বারে G লেখা এলে এই ধরণের নেটওয়ার্ক থাকে

    খ. EDGE: Enhanced Data for GSM Evolution (১০০-১২০ কেবিপিএস)

    E লেখা থাকবে। জিপিআরএস থেকে আলাদা। ২.৭৫জি নেটওয়ার্ক

    3G

    ২০০৪ থেকে ০৭-এর মধ্যে এই নেটওয়ার্ক বাজারে চলে আসে। আরও অনেক ডেটা স্বাভাবিকভাবেই। ২ এমবিপিএস পর্যন্ত স্পি়ড দিতে পারে এই নেটওয়ার্ক।

    H(হাই স্পিড প্যাকেট অ্যাকসেস)

    3G থেকে দ্রুত 3.5G স্পিড থাকবে এতে।

    H+

    হাই স্পিড অ্যাকসেস নেটওয়ার্কেরই আরও শক্তিশালী ভার্সান। 4G বাজারে আসার আগে ছিল এটা। থ্রিজি নেটওয়ার্কে সবথেকে দ্রুত স্পিড ছিল এর। মোটামুটি ফোরজির ঘাড়ের কাছেই প্রায় নিঃশ্বাস ফেলেছিল এটি। কিন্তু ITU বা ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়ন ফোরজি-র জাতে তোলেনি সেটিকে।

    4G

    ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়ন এই ফোরজি নেটওয়ার্কের জন্য কিছু নির্দিষ্ট মাপকাঠি ঠিক করে দিয়েছে। যাই হোক, এরও কিছু টাইপ আছে।

    ক. LTE

    ১৫ এমবিপিএস স্পিড। থ্রিজিকে অনেকটাই পেছনে ফেলে এটি। ডেটা ট্রান্সমিশনের বিষয়টিও অনেকটাই উন্নত।

    খ. WiMax

    প্রথমে ওয়্যারলেস হোম ব্রডব্র্যান্ড সার্ভিসে ব্যবহার হত এটি। কিন্তু এখন মোবাইলেও চলে এসেছে। বর্তমানে ৪০ এমবিপিএস পর্যন্ত স্পিড দেয়। কিন্তু কাজ চলছে। ঠিকঠাক হলে ১জিবিপিএস পর্যন্ত স্পিড উঠে যাবে ওয়াইম্যাক্সের।

    একাধিক নতুন অ্যানড্রয়েড ডিভাইসে মিলল ম্যালওয়ারের সন্ধান। আপনার ফোনটি সুরিক্ষিত তো?

    Read more about:
    English summary
    The demand for faster speeds and improved connectivity has led to the development of a variety of networks. Here are few differences between H+, LTE, 4G, and 3G.

    Bengali Gizbot আপনাকে নটিফিকেশন পাঠাতে চায়

    We use cookies to ensure that we give you the best experience on our website. This includes cookies from third party social media websites and ad networks. Such third party cookies may track your use on Gizbot sites for better rendering. Our partners use cookies to ensure we show you advertising that is relevant to you. If you continue without changing your settings, we'll assume that you are happy to receive all cookies on Gizbot website. However, you can change your cookie settings at any time. Learn more